আমাদের মধ্যে অধিকাংশই জানেন না যে প্রদত্ত ঋণের পরিমাণ কিভাবে নির্ধারণ করা হয়। মাঝে মাঝে আমরা দেখতে পাই যে একই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত, সমপরিমাণ বেতন প্রাপ্ত দুই ব্যক্তি বহুলাংশে ভিন্ন পরিমাণের ঋণ পেয়ে থাকেন। এটা কিভাবে সম্ভব হয়?

ঋণের জন্য যোগ্যতা দুটি ভিন্ন ভিন্ন গণনার উপর নির্ভরশীল

  • প্রতি মাসে যে পরিমাণ ঋণ আপনি পরিশোধ করতে পারেন।
  • সম্পত্তির মূল্যের একটি শতাংশ।

আসুন আমরা প্রথম গণনাটি সম্পর্কে জানি: পরিশোধ করার ক্ষমতা

পরিশোধ করার ক্ষমতা আপনার মোট আয় ও ব্যয়ের উপর নির্ভরশীল। ধরা যাক আপনার মাসিক আয় 20,000 টাকা এবং আপনার মাসিক ব্যয় 12,000 টাকা, তাহলে আপনি কোন ঋণ নিলে তার জন্য 8000 টাকা দিতে পারবেন। এই অঙ্কটিকে এরপর ঋণের মেয়াদের জন্য বিপরীত মুখী গণনার সাহায্যে নির্ণয় করে যোগ্যতার পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। স্বাভাবিক ভাবেই, আপনার পরিশোধ করার ক্ষমতা বেশি হলে আপনার ঋণের যোগ্যতাও বৃদ্ধি পাবে।

এটা কি এতই সহজ?

না। কিন্তু এটা হল মূল ভিত্তি। এছাড়া অন্যান্য বিষয়ও রয়েছে যেগুলি পরিশোধ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। যেমন, আপনি যখন গৃহের মালিক হবেন তখন আপনি বাড়ি ভাড়া বাবদ যদি 2000 টাকা সাশ্রয় করতে পারেন তাহলে আপনার পরিশোধ করার ক্ষমতা হবে (8000 টাকা ও 2000 টাকা) যার ফলে আপনি যে পরিমাণ ঋণ গ্রহণ করতে পারেন সেটাও বৃদ্ধি পাবে। এছাড়াও, একই আয়ের জন্য বেশি মেয়াদের ঋণের জন্য ঋণের যোগ্যতা বৃদ্ধি পায় কারণ একই পরিমাণ অর্থ অনেক বেশি দিন ধরে পরিশোধ করা হয়।

কোনগুলিকে আয় রূপে গণ্য করা হয়?

ঋণ গ্রহণকারীর আয় নির্ধারণের কিছু সাধারণ নীতি নীচে দেওয়া হল। সাধারণত নিম্নলিখিতগুলিকে আয় রূপে গণ্য করা হয় না

  • চিকিৎসার জন্য অর্থ পরিশোধ, পারফর্মেন্স বোনাস, বা এলটিএ, কারণ এগুলি নিয়মিত সময় অন্তর এবং সুনির্দিষ্ট পরিমাণে পাওয়া যায় না।
  • সুদ থেকে আয়, যদি না প্রমাণ করা যায় যে এটি একটি নিয়মিত আয়ের উৎস।
  • ওভারটাইম, একই কারণের জন্য।
  • খরচের ভাউচার, ভাড়া থেকে আয় ইত্যাদি যাচাই-অযোগ্য উৎস থেকে আয়, যদি না সেই উৎসের ধারাবাহিকতা বা স্থায়ী হওয়ার প্রামাণিক প্রমাণ দাখিল করা যায়।

স্ব-নিযুক্ত পেশাদারদের জন্য কিছু নথিপত্র ভিন্ন হয় এবং পরিমাপও কিছুটা আলাদা হয়।

সম্পত্তির যৌথ মালিকানার ক্ষেত্রে পরিশোধ করার ক্ষমতা নির্ধারণের জন্য উভয় আবেদনকারীর, এবং সহ-আবেদনকারীদের আয় একত্রিত করে গণনা করা হয়।

বিদ্যমান ঋণ

যদি আপনার কোন বিদ্যমান ঋণ থাকে, তাহলে সেটি আপনার পরিশোধ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে, কারণ বিদ্যমান ঋণের ইএমআই আপনার ব্যয় যোগ্য আয়(উপরের উদাহরণে যা 8000 টাকা) হ্রাস করে। যদিও, বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে 6 মাসের মত স্বল্পমেয়াদী ঋণ বিবেচিত হয় না।

মেয়াদ

আপনি যদিও এটা বুঝতে পেরেছেন যে কিভাবে মেয়াদ দীর্ঘ করার মাধ্যমে ঋণের যোগ্যতার পরিমাণ বৃদ্ধি করা যায়, কিন্তু এই পদ্ধতির সীমাবদ্ধতা বোঝাও গুরুত্বপূর্ণ।

উপলভ্য ঋণের সর্বাধিক মেয়াদ আবেদন করার সময় আপনার যা বয়স তার উপর নির্ভরশীল। বেতনভোগী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে বয়স 58 বছর/60 বছরের (আপনার কর্ম প্রতিষ্ঠানে যা হয়ত অবসর গ্রহণের বয়স) বেশি হলে চলবে না এবং স্ব-নিযুক্ত পেশাদারদের ক্ষেত্রে 65 বছরের বেশি হলে চলবে না।

এই কথা মাথায় রেখে, সর্বাধিক সম্ভাব্য মেয়াদ নিলে সেটা সর্বাধিক যোগ্যতার পরিমাণ নিশ্চিত করে।

আমাদের কাছে  ইএমআই ক্যালকুলেটর, টুল আছে যা আপনাকে আপনার আনুমানিক মাসিক পরিশোধ বিকল্পগুলি জানতে সাহায্য করবে।

নির্দিষ্ট পরিমাণ জানার জন্য আমাদের কল করুন, বা আমাদের সঙ্গে দেখা করুন এবং আমরা আনন্দের সঙ্গে গণনা করে আপনাকে বিস্তারিত ভাবে জানাবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*
Website